ঢাকা ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
হারানো ব্যাগ সহ ব্যাগের মধ্যে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ফিরে পেলেন এক যাত্রী দর্শনা হল্ট রেলওয়ে পুলিশের সহযোগীতায় রাজশাহী জেলা শাখা স্বাচিপ সভাপতি ডা. জাহিদ ও সম্পাদক ডা. অর্ণা জামান চুয়াডাঙ্গায় রেললাইনে ফাটল ধীরগতি ট্রেন চলাচল দর্শনা হল্ট রেলওয়ে স্টেশনে বিশেষ অভিযানে সাগরদাড়ী এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি থেকে একজন পকেটমার গ্রেফতার গুলিবিদ্ধ হয়ে জীবনশঙ্কায় স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী গাজা নিয়ে মতবিরোধ, প্রথম ইহুদি-আমেরিকান বাইডেন কর্মকর্তার পদত্যাগ শ্রম আইন সংশোধনে আইএলও’র পরামর্শ গ্রহণ নিয়ে নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ে আলোচনা হবে: আইনমন্ত্রী রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে শোইগুকে সরিয়ে দিচ্ছেন পুতিন ভয়াবহ আগুন ইসরাইল সেনাঘাঁটিতে নতুন করে চুরি হয়নি রিজার্ভ : বাংলাদেশ ব্যাংক

দুইযুগ পর এমপিওভুক্ত হলো ডাঙ্গেরহাট মহিলা কলেজ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:০৪:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীর পবায় এবারে সরকারি এমপিও (মাসিক সরকারি অনুদান) ভুক্ত হয়েছে। দীর্ঘ ২৩ বছর পর উপজেলার হুজুরীপাড়া ইউনিয়নের ডাঙ্গেরহাট মহিলা কলেজটি এমপিও হয়েছে। এনিয়ে শিক্ষক-কর্মচারি ও মানেজিং কমিটির সদস্য, শিক্ষানুরাগী ও শুভাকাঙ্খিদের মাঝে উচ্ছাস-উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

জানা জানা, ডাঙ্গেরহাট মহিলা কলেজটি ২০০০ সালে স্থাপিত হয়। কিন্তু এমপিওভুক্ত হলো ২০২৩ সালের ১৭ অক্টোবর। এব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ আসলাম হোসেন ও প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল হালিম বলেন, কলেজটি এমপিওভুক্ত হওয়ায় কলেজটির লেখাপড়ার গতি আরো বেড়ে যাবে। এতদিন প্রতিষ্ঠানটি এমপিও না হওয়ায় শিক্ষাদান অনেকটাই ছিমিয়ে পড়েছিল। মানবিক কারণে অনেক কিছু ছাড় দিয়ে চলতে হয়েছে। এমপিওভুক্ত হওয়ায় শিক্ষক-কর্মচারির কোন ধরণের ব্যত্যয় করার সুযোগ থাকবে না।

এদিকে কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিষদ, অধ্যক্ষ, শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, রাজশাহী-৩ (পবা মোহনপুর) আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, পবা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: ইয়াসিন আলী, হুজরীপাড়া ইউপির চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফাসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট কাজে সহযোগিতাকারী সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ, বর্তমানে কলেজের শিক্ষার্থী রয়েছে ২১৭ জন। বিভিন্ন বিভাগে ২৫জন শিক্ষক ও ১২জন কর্মচারী রয়েছে। তবে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি বেশি থাকলেও ক্লাসরুম ঘুরে দেখা যায় বসার জায়গার সংকট। শ্রেণিকক্ষে পর্যাপ্ত বসার বেঞ্চ নেই।

এদিকে অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের অফিস কক্ষে চেয়ার, টেবিলসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সহায়ক সামগ্রীও নেই। এমতবস্থায় স্থানীয় এমপি ও উপজেলা প্রশাসনের কাছে কলেজের সুউচ্চ ভবন, শিক্ষার্থীদের বসার জন্য বেঞ্চ ও খেলাধুলার সামগ্রী, অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের অফিস কক্ষসহ প্রয়োজনীয় সহায়ক সামগ্রী দেওয়ার জোর দাবী জানিয়েছেন শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিষদ ও সচেতন মহল।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

দুইযুগ পর এমপিওভুক্ত হলো ডাঙ্গেরহাট মহিলা কলেজ

আপডেট সময় : ০১:০৪:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীর পবায় এবারে সরকারি এমপিও (মাসিক সরকারি অনুদান) ভুক্ত হয়েছে। দীর্ঘ ২৩ বছর পর উপজেলার হুজুরীপাড়া ইউনিয়নের ডাঙ্গেরহাট মহিলা কলেজটি এমপিও হয়েছে। এনিয়ে শিক্ষক-কর্মচারি ও মানেজিং কমিটির সদস্য, শিক্ষানুরাগী ও শুভাকাঙ্খিদের মাঝে উচ্ছাস-উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

জানা জানা, ডাঙ্গেরহাট মহিলা কলেজটি ২০০০ সালে স্থাপিত হয়। কিন্তু এমপিওভুক্ত হলো ২০২৩ সালের ১৭ অক্টোবর। এব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ আসলাম হোসেন ও প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল হালিম বলেন, কলেজটি এমপিওভুক্ত হওয়ায় কলেজটির লেখাপড়ার গতি আরো বেড়ে যাবে। এতদিন প্রতিষ্ঠানটি এমপিও না হওয়ায় শিক্ষাদান অনেকটাই ছিমিয়ে পড়েছিল। মানবিক কারণে অনেক কিছু ছাড় দিয়ে চলতে হয়েছে। এমপিওভুক্ত হওয়ায় শিক্ষক-কর্মচারির কোন ধরণের ব্যত্যয় করার সুযোগ থাকবে না।

এদিকে কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিষদ, অধ্যক্ষ, শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, রাজশাহী-৩ (পবা মোহনপুর) আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, পবা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: ইয়াসিন আলী, হুজরীপাড়া ইউপির চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফাসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট কাজে সহযোগিতাকারী সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ, বর্তমানে কলেজের শিক্ষার্থী রয়েছে ২১৭ জন। বিভিন্ন বিভাগে ২৫জন শিক্ষক ও ১২জন কর্মচারী রয়েছে। তবে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি বেশি থাকলেও ক্লাসরুম ঘুরে দেখা যায় বসার জায়গার সংকট। শ্রেণিকক্ষে পর্যাপ্ত বসার বেঞ্চ নেই।

এদিকে অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের অফিস কক্ষে চেয়ার, টেবিলসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সহায়ক সামগ্রীও নেই। এমতবস্থায় স্থানীয় এমপি ও উপজেলা প্রশাসনের কাছে কলেজের সুউচ্চ ভবন, শিক্ষার্থীদের বসার জন্য বেঞ্চ ও খেলাধুলার সামগ্রী, অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের অফিস কক্ষসহ প্রয়োজনীয় সহায়ক সামগ্রী দেওয়ার জোর দাবী জানিয়েছেন শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কলেজের ব্যবস্থাপনা পরিষদ ও সচেতন মহল।