ঢাকা ১১:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
দেশের উন্নয়নের স্বার্থেই শিক্ষায় বৈষম্য দূর করতে হবে: এমপি বাদশা রাজশাহী বঙ্গবন্ধুর ভাবনায় সমবায়ভিত্তিক কৃষি: সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনার দর্শনা হল্ট রেলওয়ে স্টেশনে রাজশাহী ইউনিভার্সিটির মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্টের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে বিট পুলিশিং ও র‍্যালির আয়োজন কলকাতার ওই ফ্ল্যাটের সেপটিক ট্যাংক থেকে দেহের খণ্ডিত অংশ উদ্ধার চুয়াডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশন থেকে এক পাসপোর্ট ছিনতাইকারী গ্রেফতার এমপি আনারের মরদেহ পাওয়া নিয়ে আশাবাদী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ দ্রুত মেরামতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর দর্শনা হল্ট রেলওয়ে পুলিশের সহযোগীতায় হারানো ব্যাগ সহ ব্যাগের মধ্যে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ফিরে পেলেন এক যাত্রী রাজশাহী জেলা শাখা স্বাচিপ সভাপতি ডা. জাহিদ ও সম্পাদক ডা. অর্ণা জামান চুয়াডাঙ্গায় রেললাইনে ফাটল ধীরগতি ট্রেন চলাচল

লুটেরাদের জন্য সমবায় ব্যাংক ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে: সমবায় প্রতিমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৯ জুন ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক: লুটেরাদের জন্য সমবায় ব্যাংক ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা। তিনি বলেন, এমন কোনো কাজ নেই যা বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক করতে পারবে না। শুধু মানুষের অভাবে, নেতৃত্বের অভাবে ব্যাংকটির আজ দুরাবস্থা।

শনিবার (৮ জুন) বিকেলে রাজশাহী সার্কিট হাউস সভাকক্ষে সমবায় বিভাগ ও পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় ও চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ নয়, ইস্ট পাকিস্তান তথা ১৯৪৮ সালের ব্যাংক হচ্ছে সমবায় ব্যাংক, যার সিরিয়াল নম্বর চার। কেবল নেতৃত্বের অভাবে এই ব্যাংকের সব শেষ! আমি জানি না নেতৃত্ব দিতে পারব কি না। আপনাদের সবার সাহায্য-সহযোগিতায় আমি একটু আলোড়ন তৈরি করার চেষ্টা করছি। আমি না এলে আপনার এক লাখ টাকা ঋণ কোনোদিনই পেতেন না। ব্যাংকই চলে না। লোন চাইতে গেলে ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেন যে, স্যার মূলধন থেকে বেতন দিচ্ছি। আমি বললাম, তাহলে ব্যাংক রাখছেন কেন, বন্ধ করে দেন। আপনারা বেতন নিতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না আর লোন দিতে গেলেই সমস্যা হচ্ছে?

প্রতিমন্ত্রী বলেন, একজন রিকশাচালক, একজন দিনমজুর এই শহরে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় মাত্র ৫শ টাকা রোজগার করার জন্য পরিশ্রম করছেন। তারা কখনো মাথা ঘুরে পড়ে যাচ্ছেন। অথচ আমরা হয়তো মেধার গুণে কিংবা তদবিরের গুণে আমরা একটি সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাচ্ছি না। আমরা কেন এত স্বার্থপর হব? আমি কেন একটু পরিশ্রম করে আর ১০টি লোকের সুবিধা কেন করে দেব না? যদিও বাংলাদেশ একটি দেশ যেখানে অনেক ব্যর্থতার গ্লানি বয়ে বেরিয়েছি। কিন্তু দেখেন গত ১৭ বছরে জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সাহসী করেছেন। সবকিছুই খুব নাইসলি হচ্ছে। ৭০-৭১ সালে রাজশাহীর ডিসি সাহেবের ভাঙ্গা চেয়ারে খুঁটি মারা ছিল। এই দেশ গড়েছেন শেখ হাসিনা, তাই আমরা এখন অনেক ভালো আছি।

প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা বলেন, আমাদের বিপুল জনসংখ্যা আউটসাইড হয়ে যাচ্ছে। এদের জন্য বেশি না, আপনারা তিনটি বছর একটু মনযোগ দিয়ে কাজ করেন। আপনারা যার যে কাজ তা সঠিকভাবে পালন করেন। তাহলে দেখবেন, সবকিছু সহজ হয়ে গেছে। আমাদের টার্গেট বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার। এভাবে কাজ করতে পারলে তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন সহজ হবে। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে আমরা বাস্তবে রূপ দিয়ে দেখিয়ে দেবো। এজন্য চাপ নিতে হবে।

মতবিনিময় সভা শেষে প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা চারঘাট উপজেলার ‘কালুহাটি পাদুকা শিল্প মালিক সমিতি লিমিটেড’র ১৭ জন সদস্যকে বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক লিমিটেডের প্রকল্প ঋণ এবং বিআরডিবির কৃষক সমবায় সমিতিকে এক লাখ টাকা করে চেক বিতরণ করেন।

রাজশাহীর জেলা প্রশাসক (ডিসি) শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় সমবায় কার্যালয়ের যুগ্মনিববন্ধক মোখলেসুর রহমান ও রাজশাহী বিআরডিবির উপ-পরিচালক (ডিডি) একেএম জাকিরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন পবা উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার মোসাঃ শামসুন্নাহার এবং চারঘাট উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার জহুরুল  ইসলাম প্রমুখ।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

লুটেরাদের জন্য সমবায় ব্যাংক ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে: সমবায় প্রতিমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৩:০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৯ জুন ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক: লুটেরাদের জন্য সমবায় ব্যাংক ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা। তিনি বলেন, এমন কোনো কাজ নেই যা বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক করতে পারবে না। শুধু মানুষের অভাবে, নেতৃত্বের অভাবে ব্যাংকটির আজ দুরাবস্থা।

শনিবার (৮ জুন) বিকেলে রাজশাহী সার্কিট হাউস সভাকক্ষে সমবায় বিভাগ ও পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় ও চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ নয়, ইস্ট পাকিস্তান তথা ১৯৪৮ সালের ব্যাংক হচ্ছে সমবায় ব্যাংক, যার সিরিয়াল নম্বর চার। কেবল নেতৃত্বের অভাবে এই ব্যাংকের সব শেষ! আমি জানি না নেতৃত্ব দিতে পারব কি না। আপনাদের সবার সাহায্য-সহযোগিতায় আমি একটু আলোড়ন তৈরি করার চেষ্টা করছি। আমি না এলে আপনার এক লাখ টাকা ঋণ কোনোদিনই পেতেন না। ব্যাংকই চলে না। লোন চাইতে গেলে ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেন যে, স্যার মূলধন থেকে বেতন দিচ্ছি। আমি বললাম, তাহলে ব্যাংক রাখছেন কেন, বন্ধ করে দেন। আপনারা বেতন নিতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না আর লোন দিতে গেলেই সমস্যা হচ্ছে?

প্রতিমন্ত্রী বলেন, একজন রিকশাচালক, একজন দিনমজুর এই শহরে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় মাত্র ৫শ টাকা রোজগার করার জন্য পরিশ্রম করছেন। তারা কখনো মাথা ঘুরে পড়ে যাচ্ছেন। অথচ আমরা হয়তো মেধার গুণে কিংবা তদবিরের গুণে আমরা একটি সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাচ্ছি না। আমরা কেন এত স্বার্থপর হব? আমি কেন একটু পরিশ্রম করে আর ১০টি লোকের সুবিধা কেন করে দেব না? যদিও বাংলাদেশ একটি দেশ যেখানে অনেক ব্যর্থতার গ্লানি বয়ে বেরিয়েছি। কিন্তু দেখেন গত ১৭ বছরে জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সাহসী করেছেন। সবকিছুই খুব নাইসলি হচ্ছে। ৭০-৭১ সালে রাজশাহীর ডিসি সাহেবের ভাঙ্গা চেয়ারে খুঁটি মারা ছিল। এই দেশ গড়েছেন শেখ হাসিনা, তাই আমরা এখন অনেক ভালো আছি।

প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা বলেন, আমাদের বিপুল জনসংখ্যা আউটসাইড হয়ে যাচ্ছে। এদের জন্য বেশি না, আপনারা তিনটি বছর একটু মনযোগ দিয়ে কাজ করেন। আপনারা যার যে কাজ তা সঠিকভাবে পালন করেন। তাহলে দেখবেন, সবকিছু সহজ হয়ে গেছে। আমাদের টার্গেট বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার। এভাবে কাজ করতে পারলে তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন সহজ হবে। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে আমরা বাস্তবে রূপ দিয়ে দেখিয়ে দেবো। এজন্য চাপ নিতে হবে।

মতবিনিময় সভা শেষে প্রতিমন্ত্রী আব্দুল ওয়াদুদ দারা চারঘাট উপজেলার ‘কালুহাটি পাদুকা শিল্প মালিক সমিতি লিমিটেড’র ১৭ জন সদস্যকে বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক লিমিটেডের প্রকল্প ঋণ এবং বিআরডিবির কৃষক সমবায় সমিতিকে এক লাখ টাকা করে চেক বিতরণ করেন।

রাজশাহীর জেলা প্রশাসক (ডিসি) শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় সমবায় কার্যালয়ের যুগ্মনিববন্ধক মোখলেসুর রহমান ও রাজশাহী বিআরডিবির উপ-পরিচালক (ডিডি) একেএম জাকিরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন পবা উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার মোসাঃ শামসুন্নাহার এবং চারঘাট উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার জহুরুল  ইসলাম প্রমুখ।